TMC-CPM-Congress: কেন্দ্রীয় সরকারের সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে এক মঞ্চে থাকতে পারে সিপিএম-তৃণমূল-কংগ্রেস

Loading...

কেন্দ্রের একটি সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে এবার এক মঞ্চে থাকতে পারেন সিপিএম-কংগ্রেস-তৃণমূল নেতৃত্ব। বরাহনগরের কাছে বনহুগলিতে রয়েছে প্রতিবন্ধীদের চিকিৎসা ও গবেষণার জন্য কেন্দ্রীয় প্রতিষ্ঠান ন্যাশনাল ইন্সটিটিউট ফর লোকাল লোকোমোটর ডিসএবিলিটিস (এনআইএলডি)। সম্প্রতি ওই প্রতিষ্ঠানটিকে পশ্চিমবঙ্গ থেকে সরিয়ে নিয়ে যাওয়ার কথা প্রকাশ্যে এসেছে। কেন্দ্রীয় সরকারেরওই সিদ্ধান্তের প্রতিবাদে এক মঞ্চে থাকতে পারেন বিজেপি-বিরোধী তিন রাজনৈতিক দলের নেতা-নেত্রীরা। বনহুগলিতে ওই প্রতিষ্ঠানের সামনে আগামী ৩ সেপ্টেম্বর পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য প্রতিবন্ধী সম্মিলনী ও অন্যান্য সংগঠনের ডাকে এক প্রতিবাদ কর্মসূচির আয়োজন করা হয়েছে। সেই কর্মসূচিতেই আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে কেন্দ্রীয় সরকার-বিরোধী তিন রাজনৈতিক দলের নেতৃত্বকে।

ওই প্রতিবাদ সভায় শামিল হওয়ার জন্য আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে প্রাক্তন সাংসদ তথা সিপিএমের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য সুজন চক্রবর্তীকে। আমন্ত্রণপত্র গিয়েছে প্রাক্তন বিরোধী দলনেতা তথা কংগ্রেস নেতা আব্দুল মান্নানের কাছে। আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে রাজ্যের প্রাক্তন মন্ত্রী তথা স্থানীয় তৃণমূল বিধায়ক তাপস রায়কে। রাজ্য রাজনীতিতে তৃণমূলের বিরোধী হলেও এক্ষেত্রে কেন্দ্রীয় সরকারের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানাতে তৃণমূলের সঙ্গে এক মঞ্চে থাকতে আপত্তি নেই সুজন-মান্নানদের। বুধবার সুজন বলেন, ‘‘প্রতিবন্ধীদের ওই প্রতিষ্ঠানটি রাজ্য থেকে তুলে নিয়ে যাওয়ার সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে আমরা সরব হব। ওই প্রতিবাদ মঞ্চে কে এল বা না এল দেখলে চলবে না। সবার আগে কেন্দ্রীয় সরকারের এই সিদ্ধান্ত প্রত্যাহারের দাবিতেই আমরা কথা বলব।’’

Loading...

ওই সভায় আমন্ত্রণ পাওয়ার কথা স্বীকার করে নিয়েছেন বরাহনগরের তৃণমূল বিধায়ক তাপস। তিনি বলেন, ‘‘আমার কাছে ওই প্রতিবাদ সভায় থাকার আমন্ত্রণ এসেছে। কিন্তু এখনও যাব কিনা ঠিক করিনি। তবে ওই সংগঠন যে দাবি প্রতিবাদ কর্মসূচির ডাক দিয়েছে, তাতে আমাদের পূর্ণ সমর্থন রয়েছে।’’

উদ্যোক্তারা জানিয়েছেন, ওই প্রতিবাদ কর্মসূচিতে আমন্ত্রণ জানানো হবে তৃণমূলের রাজ্যসভার সাংসদ দোলা সেনকেও।

Loading...
Loading...
Share

You may also like...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *