Sreelekha Mitra: বুদ্ধবাবুকে ভাল না লাগলেই ভাল: ভেনিসে যাওয়ার পথেই শ্রাবন্তীকে কটাক্ষ শ্রীলেখার

Loading...

রাজনীতিতে অরুচি জন্মেছে বিজেপি সদস্য শ্রাবন্তী চট্টোপাধ্যায়ের। তিনি উপলব্ধি করেছেন, রাজনীতি তাঁর জন্য নয়। এমনই গুঞ্জন ছড়িয়েছে টলিউডে। খবর, সে কথা তিনি নাকি তাঁর দলীয় এক সহ-অভিনেত্রীর কাছে বলেও ফেলেছেন। ঘটনা জানাজানি হতেই মুখ খুলেছেন শ্রীলেখা মিত্র। দিন দুই আগেই বিজেপি ছেড়ে বাম দলে যোগ দিয়েছেন দুই অভিনেতা অনিন্দ্যপুলক বন্দ্যোপাধ্যায় এবং রূপা ভট্টাচার্য। তখনও প্রতিবাদ জানিয়েছিলেন অভিনেত্রী। সেই জায়গা থেকেই মঙ্গলবার সামাজিক পাতায় শ্রাবন্তীকে শ্রীলেখার কটাক্ষ, ‘এখন মোদী নয়, দিদিকে ভাল লাগছে তা হলে!’ তার পরেই তাঁর ব্যঙ্গ, ‘বুদ্ধবাবুকে ভাল না লাগলেই ভাল।’

ঘুরিয়ে শ্রাবন্তীকে বাম দলে না আসার কথাই কি বলতে চেয়েছেন শ্রীলেখা?

Loading...

উত্তর পাওয়া যায়নি। কারণ, শ্রীলেখা মঙ্গলবার রাতে ভেনিসের উদ্দেশে রওনা দিয়েছেন। এ দিন রাতেই নিজের সামাজিক পাতায় ছবি দিয়ে এ কথা জানিয়েছেন অভিনেত্রী। আদিত্যবিক্রম সেনগুপ্তের ছবি ‘ওয়ান্স আপঅন আ টাইম ইন কলকাতা’ ভেনিস চলচ্চিত্র উৎসবে আমন্ত্রণ পেয়েছে। এই ছবিতে অভিনয় করেছেন তিনি। সম্ভবত সেই উদ্দেশেই তাঁর এই যাত্রা। প্রসঙ্গত, ২১ বছর পরে বাংলা ছবি আবার ভেনিস চলচ্চিত্র উৎসবে ডাক পেল।

জনৈক নেটাগরিকের পোস্টে শ্রীলেখার মন্তব্য।

Loading...

জনৈক নেটাগরিকের পোস্টে শ্রীলেখার মন্তব্য।


একা শ্রীলেখা নন, বাম দলে দুই বিজেপি অভিনেতার যোগদানকে সমর্থন করেননি বাম সমর্থক ও জনপ্রিয় অভিনেতা রাহুল অরুণোদয় বন্দ্যোপাধ্যায়ও। সোমবার শ্রমজীবী ক্যান্টিনের ৫০০ দিন পূর্তিতে শতরূপ ঘোষের সঙ্গে মিছিলে পা মেলান অনিন্দ্য এবং রূপা। অনিন্দ্যর দাবি, নিজের ভুল শোধরাতেই তিনি বাম দলে আসছেন। পাশাপাশি, নিজেদের মেরুদণ্ডের জোরে ২৮-৩০ বছর বয়সি রেড ভলান্টিয়ার্সরা যে ভাবে সমাজের সব স্তরের মানুষের পাশে রয়েছেন সেটাও আকৃষ্ট করেছেন তাঁকে। রূপার দাবি, তাঁকে বাম শিবির থেকে এই বিশেষ উদ্‌যাপনে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছিল।

অনিন্দ্য ও রূপার বাম দলে যোগদানের ছবি প্রকাশ্যে আসতেই ছোট পর্দার ‘রাজা’ প্রথম প্রতিবাদ করেন। অন্য দিকে, বুধবার বিষয়টি নিয়ে শ্রমজীবী ক্যান্টিনের হয়ে মুখ খুলেছেন ‘শ্রীময়ী’ ধারাবাহিকের ‘জুন আন্টি’ ওরফে ঊষসী চক্রবর্তী। প্রসঙ্গত, প্রয়াত প্রাক্তন মন্ত্রী এবং কমিউনিস্ট নেতা শ্যামল চক্রবর্তীর মেয়ে ঊষসী নিজেও বাম সমর্থক। সামাজিক পাতায় এ বিষয়ে তাঁর মত, ‘বিশেষ দিনে মুক্ত আহ্বানে অনেক অংশের মানুষ সাড়া দিতে আসেন। তাঁদের প্রতি সৌজন্য দেখানো আমাদের কাজ। তার মানে আমাদের অবস্থান বা রাজনৈতিক স্লোগান, কোনওটার সঙ্গেই আমরা আপস করার কথা ভাবি না।’

Loading...
Loading...
Share

You may also like...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *