Post Poll Violence: হাইকোর্টের রায়ের পর তৎপর CBI, নথি চেয়ে মেল রাজ্য পুলিসের ডিজি-কে

Loading...

ভোট পরবর্তী হিংসা মামলায় রায় ঘোষণা করেছে হাইকোর্ট। সিবিআই-র তৎপরতা তুঙ্গে। ২৪ ঘণ্টা কাটতে না কাটতেই খুন ও ধর্ষণের মামলায় কেস ডায়েরি চাইল কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা। মেল করা হল রাজ্য পুলিসের ডিজি-কে। আদালতের নির্দেশ মেনে ইতিমধ্যেই ৪ বিশেষ তদন্তকারী দল বা SIT-ও  গঠন করা হয়েছে। এখন স্রেফ নথি হাতে আসার পর অপেক্ষা। প্রত্যেকটি অভিযোগের প্রেক্ষিতে আলাদা আলাদা মামলা রুজু করে তদন্ত শুরু হবে বলে জানা গিয়েছে। 

কাঠগড়ায়  রাজ্যের শাসকদল। ভোট পরবর্তী হিংসার  অভিযোগে খতিয়ে দেখে প্রশাসনের ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছে জাতীয় মানবাধিকার কমিশন। রিপোর্টে দাবি, রাজ্যে ভোট পরবর্তী হিংসা ঠেকাতে প্রশাসনের তরফে কোনও পদক্ষেপ করা হয়নি। এই রিপোর্টকে আবার রাজনৈতিক উদ্দেশ্য়প্রণোদিত বলে অভিযোগ করেছে তৃণমূল। প্রতিটি থানার কাছ যখন রিপোর্ট চেয়েছে নবান্ন, তখন ভোট পরবর্তী হিংসা মামলায় সিবিআই তদন্তের নির্দেশ দিল কলকাতা হাইকোর্ট।

Loading...

হাইকোর্টের বৃহত্তর বেঞ্চের নির্দেশ, খুন, ধর্ষণ, গুরুতর অপরাধের ক্ষেত্রে তদন্ত করবে সিবিআই। অপেক্ষাকৃত কম গুরুত্বপূর্ণ মামলার ক্ষেত্রে সিট বা বিশেষ তদন্তকারী গঠন করতে হবে। রিপোর্ট দিতে হবে ৬ সপ্তাহের মধ্য়ে। যদি আর কোনও অভিযোগ থাকে, তাহলে? রায়দানের সময় বিচারপতি জানিয়েছেন, ‘আর কোনও অভিযোগ থাকলে ডিভিশন বেঞ্চে জানাতে হবে। নতুন ডিভিশন বেঞ্চ গঠন করা হবে। রাজ্য সরকারকে শীঘ্রই ক্ষতিপূরণের ব্যবস্থা করতে হবে’। সেই নির্দেশে মতো এবার কাজ শুরু করে দিল সিবিআই। গতকাল রায় ঘোষণার পর সংস্থার আধিকারিকরা বৈঠকে বসেছিলেন নিজাম প্যালেসে। সেই বৈঠকেই রাজ্য পুলিসে ডিজি-কে মেল করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। 

এদিকে ভোট পরবর্তী হিংসা মামলার রায়কে চ্যালেঞ্জ করে সুপ্রিম কোর্টে যেতে পারে রাজ্য। নবান্ন সূত্রের খবর, মানবাধিকার কমিশনের (NHRC) রিপোর্টে উল্লেখিত ঘটনাসমূহ খতিয়ে দেখা হয়েছে। তাতে বেশ কিছু অসঙ্গতি মিলেছে। শীর্ষ আদালতে ইতিমধ্যেই ক্যাভিয়েট দাখিল করেছেন মামলাকারী আইনজীবী অনিন্দ্যসুন্দর দাস। 

Loading...
Loading...
Share

You may also like...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *