Porn Case: সামনে এল Wanted অরবিন্দ শ্রীবাস্তব ওরফে যশ ঠাকুরের প্রথম ছবি

Loading...

পর্নোগ্রাফি (Pornography) মামলায় Zee মিডিয়ার হাতে উঠে এল অরবিন্দ শ্রীবাস্তব ওরফে যশ ঠাকুরের (Arvind Shrivastav alias Yash Thakur) প্রথম ছবি। পর্ন মামলায় অন্যতম ওয়ানটেডের তালিকায় রয়েছেন অরবিন্দ শ্রীবাস্তব। এই তিনি মুহূর্তে সিঙ্গাপুরে (Singapore) রয়েছেন।

অভিযুক্ত অরবিন্দ শ্রীবাস্তবের ((Arvind Shrivastav) বিরুদ্ধে LOC জারি করেছে মুম্বই ক্রাইম ব্রাঞ্চ (Mumbai Crime Branch)। ক্রাইম ব্রাঞ্চ জানতে পেরেছে অরবিন্দ শ্রীবাস্তব জেনেশুনেই ইচ্ছাকৃতভাবে মৃত ব্যক্তি যশ ঠাকুরের পরিচয় ব্যবহার করছিলেন। যশ ঠাকুর, ইন্দোরে বাসিন্দা ছিলেন, যিনি ব্রেন টিউমারের কারণে ২০২০ সালের আগস্টে মারা গিয়েছেন।

Loading...

প্রসঙ্গত, এর আগে Zee নিউজের কাছে প্রথমবার মুখ খুললেন অন্যতম অভিযুক্ত যশ ঠাকুর ওরফে অরবিন্দ শ্রীবাস্তব। তাঁর দাবি ছিল তিনি OTT  প্ল্যাটফর্ম ‘নিউফ্লিক্স’- (Neufilx)র মালিক নন, তিনি শুধুমাত্র একজন আইটি ফ্রিল্যান্স (IT) কনসালটেন্ট। তবে তাঁর অ্যাকাউন্টে যে টাকা ঢুকেছে তা যে Neufilx-র, সেটা স্বীকার করে নেন অরবিন্দ।  তাঁর দাবি ছিল, রাজ কুন্দ্রা বা উমেশ কামাতের সঙ্গে তাঁর কোনও যোগ নেই। তাঁর কথায়, ”আমি OTT সলিউশন বানাই। যে যেকোনও বড় বড় OTT প্ল্যাটফর্মই সেটা বানায়। যেটার উপর কনটেন্টের কোয়ালিটি নির্ভর করে। এটা বানিয়ে সাবমিট করলে তবে তার পেমেন্ট পাওয়া যায়। Neufilx হল একটি আমেরিকান কোম্পানি। ওখানে আমি ফ্রিল্যান্স কাজ করি। ওদের অ্যাপ মেনটেইন করাই আমার কাজ। ওদের যে কোডিং আছে, সেটাও দেখি। তবে আমি শুধু Neufilx  নয়, একাধিক কোম্পানির হয়ে কাজ করি। তবে Neufilx-র মালিকানা বদলের ডিল আমিই করিয়েছিলাম। Neufilx-র সার্ভারের যে বিল সেটাই আমার অ্যাকাউন্টের মাধ্যমে পেমেন্ট করার জন্য আমার অ্যাকাউন্টে টাকা পাঠানো হয়েছিল। কারণ, Neufilx-র ভারতের কোনও NTT নেই। তাই আমার অ্যাকাউন্টের ওই টাকা Neufilx-র।” 

এদিকে পর্নোগ্রাফি (Pornography) মামলার তদন্তে SIT গঠন করেছে মুম্বই পুলিস। এই বিশেষ তদন্তকারী দলের নেতৃত্ব দেবেন ASP পদমর্যাদার একজন আধিকারিক। এদিকে এই মামলায় শুক্রবার অভিজিৎ বম্বলে নামে রাজের কোম্পানি আরও এক ডিরেক্টরকে গ্রেফতার করেছে মুম্বই পুলিস।

Loading...
Loading...
Share

You may also like...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *